শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
রাজশাহীতে দুর্নীতি জালিয়াতি বদলি বাণিজ্যে মাউশির ডিডি রাজশাহীতে শুটারগান ও ফেন্সিডিলসহ অস্ত্র কারবারী গ্রেপ্তার চারঘাটে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৬ প্রার্থী কাস্টমস আইন, ২০২৩ বাস্তবায়নকল্পে চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রশিক্ষণ কর্মশালা সরিষাবাড়ীতে নন গ্রুপ কৃষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত চক্ষু হাসপাতালের সেবার মান বৃদ্ধিতে অত্যাধুনিক এ্যালকোন ফ্যাকো মেশিন সংযোজন নাটোর সদর থেকে ২৪ হাজার টাকা জাল নোটসহ স্বামী-স্ত্রী কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৫ রাজশাহীর চারঘাট উপজেলা প্রেসক্লাবে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত সরিষাবাড়ীতে শ্রেষ্ঠ সমবায়ী নির্বাচিত হলেন সাংবাদিক এম এ রউফ নিয়ামতপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামানত হারাচ্ছেন ৬ প্রার্থী

ছন্নছড়া ব্যাটিংয়ে পথহারা বাংলাদেশ

খেলা ডেস্ক
প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন

আউট হতে চাচ্ছিলেন খালেদ আহমেদ। শ্রীলঙ্কারা পেসাররা যেভাবে শরীর বরাবর তাক করা বাউন্স দিচ্ছিলেন তাতে নিরাপদ স্থান একটাই, ড্রেসিংরুম! আগের ব্যাটসম্যানরা যেভাবে বিপর্যয় ডেকে আনেন তাতে খালেদের এলোমেলো ব্যাটিংয়ে অভিযোগ তোলার সুযোগ নেই। বরং তার ২২ রানের অবদানকে তাজ বানিয়েই রাখা উচিৎ।

বিশ্ব ফার্নান্দোর বাউন্সারে খালেদ টপ এজে যখন ক্যাচ দেন তখন বাংলাদেশের রান কেবল ১৮৮। শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংসে করেছিল ২৮০ রান। ৯২ রানের লিড অতিথিদের। ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের ইনিংসকে ব্যখ্যা করা যায় এভাবে, ‘ছন্নছড়া ব্যাটিংয়ে পথহারা বাংলাদেশ।’

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিনের খেলাতে বাংলাদেশের ব্যাটিং ছিল বিদঘুটে। প্রবল বাজে। বিশাল রানের লিডে শ্রীলঙ্কা ম্যাচের নাটাই রেখেছে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে। ৩২ রানে ৩ উইকেট নিয়ে শনিবার দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করেছিল বাংলাদেশ। আগের দিন জাকির, মুমিনুল ও শান্ত ফেরেন ড্রেসিংরুমে। তাইজুল ইসলামকে সঙ্গী করে ৩২ রানে খেলা শুরু করেন মাহমুদুল হাসান জয়। তাদের ব্যাটে বড় রান নয়, লড়াই চেয়েছিল বাংলাদেশ। প্রথম ৫ ওভারে ২১ রান নিয়ে তারা প্রতিরোধ গড়েছিল ভালোভাবেই। কিন্তু লাহিরু কুমারা বোলিংয়ে আসতেই সব ওলটপালট।

ডানহাতি পেসারের অফ স্টাম্পের বাইরের বল আলগা ড্রাইভ করতে গিয়ে ক্যাচ দেন জয়। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসে ক্যাচ মিস করে দলকে ডুবিয়েছিলেন। অথচ তার ইনিংস থেমে যায় ১২ রানে। এরপর কেবল আসা যাওয়ার মিছিল। মাঝে দুয়েকটি শটে কেবল আশা বাড়ানো। শাহাদাত হোসেন দিপু লেগ সাইডে ফ্লিক ও অফ সাইডে দারুণ এক স্ট্রেইট ড্রাইভে ভালো কিছুর আভাস দেন। কিন্ত লাহিরুর অফ স্টাম্পের বাইরের বলে ব্যাট সরাতে পারেননি। লিটনও নিজের উইকেট বিলিয়ে এসেছেন আলগা মনোভাবে। লাহিরুর ভেতরে ঢোকানো বলে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক দিয়ে গিয়ে স্টাম্পে আঘাত করে। ৪৩ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ২৫ রানে শেষ তার ইনিংস।

ব্যাটসম্যানদের এই আসা-যাওয়ার মিছিলে দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়ে তাইজুল লড়াই করেন। তার একার লড়াইয়ে সঙ্গী পাননি কাউকে। তাই ঝুঁকি নিয়ে খেলতে হয়েছে শট। তাতেই নেমে আসে বিপদ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৭ রান করা তাইজুল ৮০ বল খেলেন। বাউন্ডারি পেয়েছেন ৬টি।

আগের দিন ১০ মিনিট ব্যাটিং করা তাইজুল আজ মাটি কামড়ে ৭২ মিনিট টিকে ছিলেন। ৮২ মিনিটের লড়াই দিয়ে অনেক প্রশ্ন তুলে গেছেন। পরীক্ষিত ব্যাটসম্যানরা কেন দায়সারা ব্যাটিং করলেন? টেস্ট খেলার ধৈর্য্য কেন দেখালেন না? তবুও কিছু আশা ছিল মিরাজের ওপর। কিন্তু রাজিথার বলে মিরাজ যেভাবে আউট হয়েছেন তাতে ‘জরিমানার’ বিধান রাখলে খারাপ হতো না নিশ্চয়ই। লেন্থ বল আকাশে উড়ান। মিড উইকেটে ক্যাচ দেন ১১ রানে।

শরিফুলের ১৫ ও খালেদের শেষের ২২ রানে বাংলাদেশের লাভই হয়েছে। লিড নেমে এসেছে শতরানের নিচে। শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানরা প্রথম ইনিংসের পরীক্ষায় ভালো করেনি। দ্বিতীয় ইনিংসে অনেকটাই চাপমুক্ত তারা। তাদের ব্যাট ছুটলে বাংলাদেশের বোলারদের নাস্তানাবুদ হতে পারে তা বলে দেওয়াই যায়। আপাতত বলাই যায়, ম্যাচটাই চরমভাবে পিছিয়ে বাংলাদেশ।


আরো পড়ুন